বাংলাদেশের অর্ধশতাধিক চিকিৎসক রেসিডেন্সি পেলেন যুক্তরাস্ট্রে


চলতি বছর অর্ধ শতাধিক বাংলাদেশি চিকিৎসক যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কসহ একাধিক অঙ্গরাজ্যে বিভাগীয় বিভিন্ন মেডিকেল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার প্রাথমিক পরীক্ষা শেষে ইন্টার্নি করার সুযোগ পেয়েছেন। বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন উত্তর আমেরিকার (বিএমএএনএ) নিউইয়র্ক চ্যাপ্টারের সার্বিক সহযোগিতায় এমন সাফল্য এসেছে। এ উপলক্ষে গত ১৫ মার্চ শুক্রবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক সিটির ফ্লাশিংয়ে এক আনন্দ সমাবেশের আয়োজন করে বিএমএএনএ। সমাবেশে সবার সাফল্যের গল্প আর আড্ডায় উঠে আসে নানান কথা। সমাবেশে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ওয়াইপিসিএপির পরিচালক ডা. ফজলুল এইচ ইউসুফ, বিএমএএনএর নিউইয়র্ক চ্যাপাটারের সভাপতি ডা. মাসুদুর রহমান, ইয়াং ফিজিশিয়ান সেক্রেটারি ডা. বর্ণালী হাসান, সিনিয়র ডা. নূরুন্নাহার ইউসূফ রোজী প্রমুখ। এছাড়াও ইন্টার্নির সুযোগ পাওয়াদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ডা. মুহাম্মদ হোসেন মিন্টু, ডা. লুবনা রহমান, ডা. তাহমিনা প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বিএমএএনএর নিউইয়র্ক চ্যাপাটারের সেক্রেটারি ডা. আতাউল ওসমানীসহ সিনিয়র একাধিক বাংলাদেশি ডাক্তার উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে ইন্টার্নি করার সুযোগ পাওয়া ডাক্তারদের ফুল দিয়ে বরণ করা হয় এবং তাদের মধ্যে কেউ কেউ মেন্টরদের পুরস্কার দিয়ে অভিনন্দিত করেন। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ইতিপূর্বে এতো অধিকসংখ্যক বাংলাদেশি চিকিৎসক একসাথে ইন্টার্নি সুযোগ পাননি। এবার এই সুযোগ পাওয়ায় আমরা গর্বিত। তারা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি-আমেরিকান চিকিৎসকের সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে একদিকে প্রবাসী বাংলাদেশিসহ অন্যান্যদের সেবার সুযোগ বাড়বে। পাশাপাশি প্রবাসে বাংলাদেশের নামও গর্বের সঙ্গে উচ্চারিত হবে। ১৯৮১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যে যুক্তরাষ্ট্রে কর্মরত বাংলাদেশি ডাক্তারদের সমন্বয়ে প্রথম বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন উত্তর আমেরিকা (বিএমএএনএ) গঠিত হয়। বর্তমানে বিএমএএনএর সাড়ে ৭ শতাধিক সদস্য রয়েছেন। যারা নিউইয়র্কসহ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত। বিএমএএনএর নিউইয়র্ক চ্যাপ্টারের ইয়াং ফিজিশিয়ান কেরিয়ার এডভান্সমেন্ট প্রোগ্রাম (ওয়াইপিসিএপি) ওয়ার্কশপের মাধ্যমে প্রবাসী বাংলাদেশি চিকিৎসকদের সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করে।
অ্যাম্বুলেন্স হার্বাল ও আয়ুর্বেদিক হোমিওপ্যাথি রুপ চর্চা
বাংলাদেশের অর্ধশতাধিক চিকিৎসক রেসিডেন্সি পেলেন যুক্তরাস্ট্রে :: Healthbd24

বাংলাদেশের অর্ধশতাধিক চিকিৎসক রেসিডেন্সি পেলেন যুক্তরাস্ট্রে


চলতি বছর অর্ধ শতাধিক বাংলাদেশি চিকিৎসক যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কসহ একাধিক অঙ্গরাজ্যে বিভাগীয় বিভিন্ন মেডিকেল পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হওয়ার প্রাথমিক পরীক্ষা শেষে ইন্টার্নি করার সুযোগ পেয়েছেন। বাংলাদেশ মেডিকেল এসোসিয়েশন উত্তর আমেরিকার (বিএমএএনএ) নিউইয়র্ক চ্যাপ্টারের সার্বিক সহযোগিতায় এমন সাফল্য এসেছে। এ উপলক্ষে গত ১৫ মার্চ শুক্রবার সন্ধ্যায় নিউইয়র্ক সিটির ফ্লাশিংয়ে এক আনন্দ সমাবেশের আয়োজন করে বিএমএএনএ। সমাবেশে সবার সাফল্যের গল্প আর আড্ডায় উঠে আসে নানান কথা। সমাবেশে শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ওয়াইপিসিএপির পরিচালক ডা. ফজলুল এইচ ইউসুফ, বিএমএএনএর নিউইয়র্ক চ্যাপাটারের সভাপতি ডা. মাসুদুর রহমান, ইয়াং ফিজিশিয়ান সেক্রেটারি ডা. বর্ণালী হাসান, সিনিয়র ডা. নূরুন্নাহার ইউসূফ রোজী প্রমুখ। এছাড়াও ইন্টার্নির সুযোগ পাওয়াদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ডা. মুহাম্মদ হোসেন মিন্টু, ডা. লুবনা রহমান, ডা. তাহমিনা প্রমুখ। অনুষ্ঠানে বিএমএএনএর নিউইয়র্ক চ্যাপাটারের সেক্রেটারি ডা. আতাউল ওসমানীসহ সিনিয়র একাধিক বাংলাদেশি ডাক্তার উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে ইন্টার্নি করার সুযোগ পাওয়া ডাক্তারদের ফুল দিয়ে বরণ করা হয় এবং তাদের মধ্যে কেউ কেউ মেন্টরদের পুরস্কার দিয়ে অভিনন্দিত করেন। অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, ইতিপূর্বে এতো অধিকসংখ্যক বাংলাদেশি চিকিৎসক একসাথে ইন্টার্নি সুযোগ পাননি। এবার এই সুযোগ পাওয়ায় আমরা গর্বিত। তারা বলেন, যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশি-আমেরিকান চিকিৎসকের সংখ্যা বৃদ্ধির ফলে একদিকে প্রবাসী বাংলাদেশিসহ অন্যান্যদের সেবার সুযোগ বাড়বে। পাশাপাশি প্রবাসে বাংলাদেশের নামও গর্বের সঙ্গে উচ্চারিত হবে। ১৯৮১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যে যুক্তরাষ্ট্রে কর্মরত বাংলাদেশি ডাক্তারদের সমন্বয়ে প্রথম বাংলাদেশ মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন উত্তর আমেরিকা (বিএমএএনএ) গঠিত হয়। বর্তমানে বিএমএএনএর সাড়ে ৭ শতাধিক সদস্য রয়েছেন। যারা নিউইয়র্কসহ যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন অঙ্গরাজ্যে চিকিৎসা সেবায় নিয়োজিত। বিএমএএনএর নিউইয়র্ক চ্যাপ্টারের ইয়াং ফিজিশিয়ান কেরিয়ার এডভান্সমেন্ট প্রোগ্রাম (ওয়াইপিসিএপি) ওয়ার্কশপের মাধ্যমে প্রবাসী বাংলাদেশি চিকিৎসকদের সার্বিক সহযোগিতা প্রদান করে।
অ্যাম্বুলেন্স হার্বাল ও আয়ুর্বেদিক হোমিওপ্যাথি রুপ চর্চা