গরমে চাই শিশুর বাড়তি যত্ন


 

প্রকৃতিতে গ্রীষ্মের আগমনী সুর বাজছে। ফলশ্রুতিতে  ভ্যাবসা গরমে জনজীবন দুর্বিশয়।বড়রা প্রকৃতিক এ নিয়মে খাপ খাইয়ে নিতে পারলেও দুর্ভোগে পড়ে যাচ্ছে শিশুরা।তাই এ সময় শিশুদের জন্য চাই একটু বাড়টি স্বাস্থ্য সতর্কতা।আসুন জেনে নিই এই গরমে বাড়ীর শিশুদের সুস্থ রাখতে আমরা কি করবোÑ

১. শিশুদের একটু পর পানি পান করাতে হবে।
২. ডাবের পানি,স্যালাইন ও বাসায় তৈরী ফ্রেশ ফলের জুস খাওয়াতে পারেন।
৩.শিশুর পোষাক নির্বাচনে সতর্ক হোন।সুতি বা পাতলা কাপড়ের পোশাক নির্বাচন করুন।
৪.শিশুর শরীর ঘেমে গেলে তা বারবার মুছে দিতে হবে।নইলে শিশু সর্দি-ঠান্ডায় আক্রান্ত হতে পারে।
৫. গরমে শিশুর ত্বকে যেন ঘামাচি না হয় সে দিকে খেয়াল রাখতে হবে। এজন্য গোসলের পর এবং ঘুমাতে যাওয়ার আগে পাউডার লাগিয়ে দিন।
৬. শিশুকে সরাসরি ফ্যান কিংবা এসির কাছে শোয়াবেন না।
৭.বদ্ধ ঘরে শিশুকে রাখা যাবে না।যে ঘরটিতে শিশু থাকবে সেখানে পর্যাপ্ত আলো বাতাস আছে কিনা তা খেয়াল রাখতে হবে।
৮.গরমে শিশুকে বাইরের খাবার খেতে দেয়া ঠিক নয়।এতে পেটের অসুখ সহ বমি হতে পারে।তাই ঘরে তৈরী খাবার খাওয়াতে হবে।
৯. গরমের সময় মশা, মাছি, পিঁপড়ে অথবা বিভিন্ন পোকামাকড়ের প্রকোপ বেড়ে যায়, যা আপনার শিশুর অসুস্থতার কারণ হতে পারে।তাই ঘর সবসময় পরিস্কার পরিচ্ছন্ন ও পোকামাকড়মুক্ত রাখুন।
১০.এ সময় শিশুকে ভিটামিন সি যুক্ত ফলমুল বেশী করে খেতে দিন।
১১.গরমে শিশু অসুস্থ হয়ে পড়লে অবহেলা না করে দ্রুত চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে প্রয়োজনীয় ওষুধ খাওয়ান।

 

ডা. মহসীন কবির

জনস্বাস্থ্য বিষয়ক লেখক ও গবেষক

ইনচার্জ,ইনস্টিটিউট অব জেরিয়েট্রিক মেডিসিন(আইজিএম)

বাংলাদেশ প্রবীণ হিতৈষী সংঘ, ঢাকা

অ্যাম্বুলেন্স হার্বাল ও আয়ুর্বেদিক হোমিওপ্যাথি রুপ চর্চা